ইতালিতে বাড়ছে বাংলাদেশ ফেরত করোনা রোগীর সংখ্যা

26

ইতালিতে বেড়ে চলছে বাংলাদেশ থেকে যাওয়া করোনা রোগীর সংখ্যা। এর জন্য প্রবাসী বাংলাদেশিদের উদাসীনতাকেই দায়ি করছেন স্থানীয় বাঙ্গালী কমিউনিটির নেতাকর্মীরা। তাদের দাবি, সম্প্রতি বাংলাদেশ থেকে ইতালি ফেরা বেশিরভাগ প্রবাসীরাই মানছেন না হোম কোয়ারেন্টাইন।

জানা যায়, শনিবার দেশটির রাজধানী রোমে সাতজন বাংলাদেশির শরীরে করোনা ভাইরাস ধরা পরেছে। এদের মধ্যে সবাই ১৭ ও ২৪ জুন বিমান বাংলাদেশের বিশেষ ফ্লাইটে ইতালি পৌঁছেছেন। এছাড়াও আরও এক বাংলাদেশি নারী লন্ডন থেকে ইতালি এলে তার শরীরেও করোনা ভাইরাস ধরা পরে। এছাড়াও কয়েকদিন আগে বাংলাদেশ থেকে ইতালি ফেরা আরও তিনজনের শরীরে করোনার অস্তিত্ব পাওয়া যায়। এনিয়ে দেশটিতে বর্তমানে বাংলাদেশ ফেরত করোনা রোগীর সংখ্যা ১০ জন। আর লন্ডন ফেরত ওই নারীসহ দেশটিতে বর্তমান বাংলাদেশি করোনা রোগীর সংখ্যা ১১ জন।

শনিবার (৪ জুলাই) রোমে সাত বাংলাদেশির করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের খবরে ফেসবুক ও ইন্সটাগ্রামে তুলুম সমালোচনা করে দেশটির নাগরিকেরা। তারা বলছেন, বর্তমান করোনামুক্ত প্রায় ইতালিতে আবারো এ রোগীর সংখ্যা বাড়াচ্ছে বিভিন্ন দেশ থেকে আসা প্রবাসীরা। এরমধ্যে বাংলাদেশিদের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। ঘনবসতির ওই দেশটিতে বর্তমানে অনেক নাগরিক করোনায় আক্রান্ত। এছাড়া দেশটির বিমানবন্দরে অনিয়ন্ত্রিত ইমিগ্রেশন ব্যবস্থার কারণে ইতালিতে আবারো করোনা রোগীর সংখ্যা বাড়ছে।

এছাড়াও কিছুদিন পূর্বে এক বাংলাদেশি রোমের বাংলাদেশ দূতাবাসে সেবা নিতে এলে জানা যায় তিনি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত। বিষয়টি ইতালিয়ান গণমাধ্যমে প্রকাশিত হলে তোপের মুখে পরে বাংলাদেশি দূতাবাস। পরে ওইদিন দূতবাসে সেবা প্রদানকারী চার কর্মকর্তাকে করোনা পরীক্ষা করার পর ফলাফল নেগেটিভ আসলে আবার সেবা কার্যক্রম চালু করে দূতাবাস।

এবিষয়ে সম্প্রতি বাংলাদেশ থেকে বিশেষ ফ্লাইটে ইতালি ফেরা মিলান প্রবাসী নজরুল ভুঁইয়া ইত্তেফাককে বলেন, বিমান বাংলাদেশের ২৭ জুনের বিশেষ ফ্লাইটে আমি ইতালি আসি এবং আসার পরেই দেশটির আইনানুযায়ী দুই সপ্তাহের জন্য হোমকোয়ারেন্টাইনে আছি। তবে আমাদের মধ্যে বেশিরভাগ মানুষই কোয়ারেন্টাইন মানছেন না। এতে ভবিষ্যতে হুমকির মুখে পড়তে হবে আমাদের।

মতামত দিন

avatar